পর্তুগালের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গে বৃত্তর নোয়াখালীবাসীর স্বাধীনতা দিবসের অানন্দভ্রমণ

এপ্রিল ০৩, ২০১৭ ০৮:০৪:অপরাহ্ণ

নাঈম হাসান পাভেল, সিনত্রা, পর্তুগাল থেকে।

নানান আনন্দ অায়োজনে পর্তুগালের চিত্তাকর্ষন রোমান সভ্যতার নগরী কুইম্ব্রা ও পর্তুগালের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ সেররা দ্যা এসট্রেলায় স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে আনন্দ ভ্রমন ও বনভোজন করেছে বৃহত্তর নোয়াখালী এ্যাসোসিয়েশন ইন পর্তুগাল।

গত ২ এপ্রিল রবিবার পর্তুগালে বসবাসরত বৃহত্তর নোয়াখালীর প্রবাসী পরিবারের সদস্যদের প্রানবন্ত ও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে মিলনমেলায় পরিনত হয় নোয়াখালীবাসীর অানন্দভ্রমণ ও বনভোজন।

অানন্দ ভ্রমণের দিনে পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে পর্তুগালের বাংলাদেশী অধ্যুষিত মার্তৃম মুনিজ পার্ক সংলগ্ন রাস্তা থেকে বাস যোগে অংশগ্রহণকারীরা যাত্রা শুরু করেন। প্রথমে রোমান সভ্যতার নগরী কুইম্ব্রা এসে পৌঁছায় বাস। ১২৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত কুইমব্রা বিশ্ববিদ্যালয় ও কুইমব্রা শহরের চারিদিকে ঘুরে দেখেন অংশগ্রহণকারীরা, বাচ্চদের নিয়ে বিভিন্ন রাইড ভ্রমণ শেষে পরে লিসবনের রাধুঁনী রেস্টুরেন্টের সুস্বাদু ও মুখরোচক বাংলা খাবারের অায়োজনে দুপুরের খাবার উপভোগ করেন সবাই।

এরপর অংশগ্রহণকারী সবার গন্তব্য হয় পর্তুগালের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ সেররা দ্যা এস্ট্রেলার উদ্দেশ্যে। যেটি ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার মাইল উপরে অবস্থিত। গ্রীষ্ম বা শীত হোক সব ঋতুতে বরফে অাসৃত থাকে পুরো পর্বত। ভূপৃষ্ঠ থেকে বাস যখন ঘুরে ঘুরে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার মাইল পাড়ি দেয় চারিদিক দৃষ্টচরে মনে হবে কোনও পর্বতদেশ পাড়ি দেয়ার মত। অার সেররা দ্যা এস্ট্রেলায় যখন পৌছে যায় অাকাশটা মনে হবে খুব কাছে, যেন হাত বাড়ালেই অাকাশটা ছুঁতে পারছি। পর্বতে পৌছে পরবর্তী আনন্দ অাড্ডা বিনোদন কার্যক্রম শুরু হয়, বরফ নিয়ে বাচ্চাদের স্কেটিং অার এদিক ওদিক ছুটোছুটি ছিলে চোখে পড়ার মত।

অানন্দ ভ্রমণের অায়োজন ও পরিচালনায় ছিলেন বৃহত্তর নোয়াখালী অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীর, সহ-সভাপতি অাবুল কালাম অাজাদ, অর্থ সম্পাদক তবারক হোসেন তপু, নজরুল ইসলাম সুমন, রনি মোহাম্মদ এবং মনজুরুল হোসেন জিন্নাহ।

এছাড়াও অাংশগ্রহন কারীদের মধ্যে অারও উপস্থিত ছিলেন, অাবুল বাসার, শহীদ উল্লাহ, মোঃ মহিন, মোঃ লিটন, মোঃ সোহেল, মোশাররফ হোসেন, মোঃ অাকতারুজ্জামান প্রমুখ ও পরিবারবর্গ।

Related Post